১৫ বছর বয়সী কিশোরীর নেতৃত্বে বাসায় ডাকাতি!


রাজধানীর সেন্ট্রাল রোডের একটি বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘ‌টে‌ছে। এই ডাকা‌তির নেতৃ‌ত্বে র‌য়ে‌ছে একজন কি‌শোরী। দ‌লের সদস‌্যরাও কি‌শোর-‌কি‌শোরী।

ওই বাসায় ডাকা‌তির ঘটনায় দা‌য়ের হওয়া মামলার তদন্ত কর‌তে গি‌য়ে পৃ‌লিশ খোঁজ পায় এই ডাকাত চ‌ক্রের। প‌রে অ‌ভিযান চা‌লি‌য়ে গ্রেপ্তার করা হয় ডাকাত দলের দুই কিশোরী, দুই কিশোর এবং দলের এক যুবককে। আনুমা‌নিক ১৫ বছরের দুই কিশোরীর মধ্যে একজন দলের নেত্রী।

পু‌লিশ বল‌ছে, গত ১৭ জুলাই সন্ধ্যার পরপরই সেন্ট্রাল রোডে মনিরুল হক নামে ওয়াসার এক অবসরপ্রাপ্ত প্রকৌশলীর বাড়িতে ডাকাতির এ ঘটনা ঘটে। অস্ত্রের মুখে বাসার দুইজনকে জিম্মি করে আধা ঘণ্টার বেশি সময় ধরে ডাকাতি ক‌রে চক্রটি। বাসা থে‌কে নগদ আট লাখ টাকাসহ মোবাইল ফোন ও অন্যান্য সরঞ্জাম লুট করে নেয় চক্রটি। ডাকাতি শেষে টাকা ও সরঞ্জাম ভাগ বাটোয়ারার পর দলের দুই সদস্যকে নিয়ে কক্সবাজারে আনন্দ ভ্রমণেও গি‌য়ে‌ছিল ডাকাত দলের মূলহোতা সেই কিশোরী।

নিউমার্কেট থানার ওসি শফিকুল গণি সাবু জানান, ডাকাতির সময় ৭০ বছর বয়সী অবিবাহিত ওই প্রকৌশলী হজের জন্য সৌদি আরবে ছিলেন। তখন তার বাসায় প্রায় ৬৫ বছর বয়সী ফিরোজা বেগম নামের এক গৃহকর্মী ছিলেন। ওই গৃহকর্মী প্রায় ২৫ বছর ধরে ওই বাসায় কাজ করছেন। বাসায় আরও ছিলেন প্রায় ১৫ বছরের পুরনো গাড়ি চালক ও তত্ত্বাধায়ক মো. রিপন (৪২)।

ডাকা‌তির পর থানায় দায়ের করা মামলার এজাহার অনযায়ী, রিপনের কাছে ঘরের চাবি দিয়ে গত ২০ জুন প্রকৌশলী মনিরুল হজে যান। রিপন বাসার উত্তর পশ্চিম দিকে গাড়ির গ্যারেজের সঙ্গে লাগোয়া একটি কক্ষে থাকেন। গৃহকর্মী ফিরোজা থাকেন বাসার ভেতরের পৃথক একটি কক্ষে। গত ১৭ জুলাই রাত পৌনে ৮টার দিকে একজন কিশোরীসহ ৬/৭ জন বাড়ির দেয়াল টপকে ভেতরে ঢুকে রিপনের ঘরে গিয়ে ধারালো অস্ত্রের মুখে তাকে জিম্মি করে ফেলে। এসময় তার মোবাইল এবং নগদ ১১ হাজার টাকা নিয়ে নেয়।

রিপন পুলিশকে জা‌নি‌য়েছেন, ডাকাত দলের সদস্যরা তাকে জিম্মি করার পর তার কাছে থাকা চাবি ‌জোর ক‌রে গেট খুলে ভেতরে ঢুকে এবং অন্যান্য রুমে যায়। এসময় বাসার ভেতরে থাকা গৃহকর্মী এগিয়ে এলে তাকেও জিম্মি করে ফেলে। দুইজনকে জিম্মি করে প্রায় ৩৫ মিনিট ধরে তারা পুরো বাসা তছনছ করে। আলমারিসহ অন্যান্য জায়গা থেকে জিনিসপত্র লুট করে। এসময় চিৎকার করলে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে চলে যায়।

মামলায় উল্লেখ করা হ‌য়ে‌ছে, ডাকাত দলের বেশিরভাগের বয়স ১৬ থেকে ২০ বছর।

নিউমার্কেট থানার ওসি শফিকুল গণি সাবু জানান, ডাকাতিতে অংশ নেয়া গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে দলনেতাসহ দুই কিশোরীর বয়স ১৫ এবং দুই যুবকের বয়স ২১ থেকে ২৩ বছর। ঘটনার পর রিপন সৌদি আরবে প্রকৌশলী মনিরুলের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারেন বাসায় নগদ আট লাখ টাকা, দুইটি মোবাইল ফোন ও হাত ঘড়ি ছিল, যা ডাকাত দলের সদস্যরা নিয়ে গেছে। ২০ জুলাই রিপন বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন।

ওসি ব‌লেন, অভিযোগ পাওয়ার পর তারা বিভিন্ন সোর্সের মাধ্যমে খোঁজ নেয়ার পাশপাশি আশেপাশের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেন। সেই ফুটেজের মাধ্যমে ১৭ বছর বয়সের এক কিশোর এবং ২৩ বছর বয়সের নাহিদুজ্জামান নাহিদকে শনাক্ত করা যায়। পরে তাদের কলাবাগান- কাঠাঁলবাগান এলাকা থেকে গত ২১ জুলাই গ্রেপ্তার করা হয়। নাহিদের কাছে পাওয়া যায় ডাকাতির ভাগের ২৫ হাজার টাকা। কিশোরটির কাছে পাওয়া যায় লুটের দুই লাখ টাকা, প্রকৌশলী মনিরুল হকের দুটি এবং তার গাড়িচালক-তত্ত্বাবধায়ক রিপনের একটি মোবাইল সেট। সেখান থেকে মাটির ব্যাংক ভেঙে নেয়া খুচরা ৭৭৮ টাকাও উদ্ধার করা হয়। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে দলনেত্রীর তথ্য পাওয়া যায়। পরে বিভিন্ন সোর্সে এবং কৌশলে জানা যায় ডাকাতির পরপরই দুই কিশোরী এবং ২১ বছর বয়সী আরেক সদস্য আফজাল হোসেন কক্সবাজারে অবস্থান করছে। তাদের ২৩ জুলাই কক্সাবাজরে গিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়।

আরও পড়ুন…নির্জন এলাকার কারখানা টার্গেট করে ডাকাতি করতো চক্রটি

লুটের টাকা দিয়ে তারা মূলত কক্সবাজারে আনন্দ ভ্রমণে গিয়েছিলো জা‌নি‌য়ে ওসি ব‌লেন, ডাকাত দলের দুই কিশোরীর বন্ধু আফজালের কাছ থেকে লুট হওয়া ঘড়ি উদ্ধার করা হয়ে‌ছে। এ দলের আরও কয়েকজন সদস্য আছে যাদের বয়স ১৬ থেকে ২০ এর মধ্যে। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/সুজন/সামি





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top