হার্দিক কেন টেস্ট খেলতে পারবেন না! শাস্ত্রীর যুক্তি মানতেই চাইলেন না কপিল দেব


হার্দিক পান্ডিয়ার টেস্টে প্রত্যাবর্তন নিয়ে বড় মন্তব্য করলেন কিংবদন্তি ভারতীয় ক্রিকেটার কপিল দেব। আসলে কিছুদিন আগেই হার্দিক পান্ডিয়ার টেস্টে প্রত্যাবর্তনের সম্ভাবনা সম্পর্কে মন্তব্য করেছিলেন ভারতের প্রাক্তন অলরাউন্ডার রবি শাস্ত্রী। এবার সেই মন্তব্যেরই তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন কপিল দেব। টেস্ট দলে হার্দিকের অনুপস্থিতি অতীতেও বেশ কয়েকবার অনুভূত হয়েছিল। তবে এই অলরাউন্ডারের ইনজুরির শঙ্কা তাঁকে খেলার দীর্ঘতম ফর্ম্যাটের বাইরে রেখেছিল। হার্দিক পান্ডিয়াকে পেস বোলিং অলরাউন্ডার হিসাবে বিবেচনা করা হয়েছিল যেটি টেস্ট ক্রিকেটে ভারতের জন্য নিদারুণ প্রয়োজন, এবং টিম ইন্ডিয়া প্রতিটি টেস্ট ম্যাচে এই খেলোয়াড়কে মিস করেছে। কিন্তু গুজরাট টাইটানসের অধিনায়ক জুলাই ২০১৭ থেকে ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় ফর্ম্যাটে আর খেলেননি।

হার্দিক পান্ডিয়া ২০১৭ সালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তাঁর টেস্ট অভিষেক হয়েছিল এবং তাঁর আক্রমণাত্মক ব্যাটিং এবং কার্যকর বোলিং দিয়ে দ্রুত নিজেকে দলের জন্য একজন মূল্যবান খেলোয়াড় হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। তিনি মোট ১১টি টেস্ট খেলেছেন, এই সময়ে তিনি ৩১ গড়ে ৫৩২ রান করেছিলেন, যার মধ্যে একটি প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি রয়েছে। তার বোলিং সমানভাবে চিত্তাকর্ষক ছিল, ২৮ রানে ৫ উইকেট নিয়ে ১৭ উইকেট সংগ্রহ করেছেন হার্দিক পান্ডিয়া।

যাইহোক, ২০১৮ সালের এশিয়া কাপের সময় তিনি পিঠের নীচে গুরুতর আঘাত পান এবং এরফলে তাঁর টেস্ট ক্যারিয়ারে বিপত্তি ঘটে। এই ইনজুরির কারণে তাঁকে শুধু বেশ কয়েকটি সিরিজ থেকে বাদ দেওয়া হয়নি, অস্ত্রোপচারেরও প্রয়োজন ছিল, যে কারণে তিনি দীর্ঘদিন টেস্ট থেকে দূরে ছিলেন। প্রত্যাবর্তন করা সত্ত্বেও, পান্ডিয়া সম্পূর্ণ পুনরুদ্ধার করতে লড়াই করেছিলেন, বারবার আঘাতের উদ্বেগ তার টেস্ট ক্যারিয়ারকে বাধাগ্রস্ত করেছিল।

প্রকৃতপক্ষে, রবি শাস্ত্রী দ্য উইকের সঙ্গে একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন যে পান্ডিয়ার শরীর টেস্ট ক্রিকেটের শারীরিক চাহিদার সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারে না এবং তাঁকে সাদা বলের ক্রিকেটে মনোযোগ দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন। এই মন্তব্য শুনে দ্য উইককে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কপিল দেব বলেছেন, ‘আমি তাঁর (শাস্ত্রীর) বক্তব্যকে সম্মান করি। কিন্তু কেন? (হার্দিকের শরীর এটা নিতে পারে না) ডেনিস লিলির চেয়ে বেশি চোট পাননি কোনও খেলোয়াড়। সেজন্য আমি শাস্ত্রীর এই কথাটা মানি না। মানুষের শরীর যেকোনও জায়গা থেকে এবং যে কোনও কিছু থেকেই পুনরুদ্ধার করতে পারে। ভালো অবস্থায় ফিরে আসতে পারে। আমরা যদি হার্দিক পান্ডিয়ার কথা বলি, সে একজন ভালো অ্যাথলেট, দেখতেও ভালো। তাঁকে নিজের শরীরের উপর কঠিন পরিশ্রম করতে হয়। আসলে, হার্দিক নিজেই টেস্টে তাড়াতাড়ি ফিরতে চান না।’



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top