মোহনবাগানে কোয়ার্টার যাত্রা রুখতে পারল না ইস্টবেঙ্গল! ৬ গোল করেও ছিটকে গেল MSC


মরশুমের প্রথম ডার্বি হারতে হয়েছে মোহনবাগানকে। এই ম্যাচ হারার পরেই ডুরান্ড কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে যাওয়া বেশ কঠিন হয়ে যায় বাগান শিবিরের কাছে। তবে ভক্তদের জন্য রয়েছে সুখবর। ডার্বি ম্যাচ হারলেও সেই চাপ কাটিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা নিয়ছে মোহনবাগান। কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠা যাওয়ার কারণের পিছনে রয়েছে গোল পার্থক্য। শেষ ম্যাচে মহামেডান জামশেদপুরকে ৬-০ গোলের ব্যবধানে হারায়। মোহনবাগান মহামেডানের সঙ্গে একই পয়েন্টে ছিল। তবে গোল পার্থক্যের জন্য তারা পরবর্তী রাউন্ডে পৌঁছে গিয়েছে। তবে সাদা-কালো ব্রিগেড জায়গা করতে পারেনি কোয়ার্টার ফাইনালে।

এই বছর ডুরান্ড কাপের নিয়ম অনুযায়ী ৬টি গ্রুপের শীর্ষে থাকা দলগুলি কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছাবে বলে ঠিক হয়। বাকি ২টি দল বেছে নেওয়া হবে দ্বিতীয় স্থানে থাকা দলগুলোর থেকে। সেই নিয়ম মোতাবেক মোহনবাগান চলে গেল পরবর্তী পর্যায়ে। গ্রুপ শীর্ষে শেষ করায় আগেই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে গিয়েছে ইস্টবেঙ্গল, মুম্বই সিটি, গোকুলম, এফসি গোয়া ও চেন্নাইয়ন এফসি। গ্রুপ এফ-এর শীর্ষে কোন দল থাকবে তা এখনও ঠিক হয়নি।

মোহনবাগান কোয়ার্টার ফাইনালে যাবে কি না তা নির্ভর করেছিল আজ অর্থাৎ রবিবারের দু’টি ম্যাচের উপর। প্রথম ম্যাচে ডাউনটাউন হিরোজকে হারায় নর্থইস্ট ইউনাইটেড। কিন্তু গোয়ার থেকে গোল পার্থক্যে তারা পিছিয়েছে থাকায় শীর্ষে শেষ করতে পারেনি। গোয়া শীর্ষ দল হিসাবেই কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছেছে। তবে ৭ পয়েন্ট থাকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা প্রথম দল হিসাবে শেষ আটে গেছে নর্থইস্ট।

মোহনবাগানের পয়েন্ট ছিল ৬। অন্যদিকে মহামেডান জামশেদপুর কে ৬ গোলে হারালে তাদের পয়েন্ট এসে দাড়ায় ৬। একই পয়েন্ট হওয়া সত্বেও মোহনবাগান গেল কোয়ার্টার ফাইনালে কারণ, এই ম্যাচের আগে পর্যন্ত মহমেডানের গোল পার্থক্য ছিল -১। ৬ গোল করায় গোল পার্থক্য বেড়ে হয়েছে +৫। মোহনবাগানের গোল পার্থক্য +৬। অর্থাৎ, গোল পার্থক্য ১ বেশি থাকায় শেষ আটে জায়গা করে নিয়েছে সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। অন্যদিকে, রাজস্থানের কাছেও মোহনবাগানের সমান পয়েন্ট করার সুযোগ রয়েছে। তারা যদি পরের ম্যাচে ইন্ডিয়ান আর্মিকে হারাতে পারে তাহলে তাদের পয়েন্ট হবে ছয়। কিন্তু সে ক্ষেত্রেও মোহনবাগানের থেকে গোল পার্থক্যে পিছিয়ে থাকবে রাজস্থান। তাই পালতোলা নৌকা শিবিরের কোয়ার্টার ফাইনালে যাওয়া আটকাতে পারছে না কেউই‌।



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top