বিমসটেক দেশগুলোতে জ্বালানি সহযোগিতা বাড়ানোর আহ্বান


বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টিসেক্টরাল, টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকোনমিক কো-অপারেশন (বিমসটেক) দেশগুলোর মধ্যে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সহযোগিতা বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার প্রণয় ভার্মা।

ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের (আইবিসিসিআই) উদ্যোগে আয়োজিত ‘বিমসটেক এনার্জি কনক্লেভ’-এ তিনি এ আহ্বান জানান।

সোমবার (৭ আগস্ট) ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশন জানায়, বিমসটেক এনার্জি কনক্লেভ’-এ প্রধান অতিথি ছিলেন প্রণয় ভার্মা।

ভারতীয় হাইকমিশনার তার বক্তৃতায় বর্তমান বৈশ্বিক অনিশ্চয়তার প্রেক্ষাপটে বিমসটেকের অধীনে আঞ্চলিক সহযোগিতার গুরুত্ব তুলে ধরেন।

তিনি জোর দিয়ে বলেন, ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক বিমসটেকের সহযোগিতার একটি গুরুত্বপূর্ণ নোঙর।

ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, বিমসটেক দেশগুলোর মধ্যে সহযোগিতার একটি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র হলো বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সহযোগিতা।বিমসটেক গ্রিড আন্তঃসংযোগ প্রতিষ্ঠার বিষয়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর সেই লক্ষ্যের একটি পদক্ষেপ।

তিনি বলেন, ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কের নিরন্তর গভীরতার একটি বৈশিষ্ট্য হলো বিদ্যুৎ ও জ্বালানি ক্ষেত্রে ক্রমবর্ধমান সহযোগিতা। এর একটি গুরুত্বপূর্ণ উদাহরণ হলো, ভারত-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ পাইপলাইন, যা এই বছরের মার্চ মাসে ভারত ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দ্বারা উদ্বোধন করা হয়েছিল। এটি টেকসই ও নির্ভরযোগ্যভাবে বাংলাদেশে প্রতি বছর দশ লাখ মেট্রিক টন হাই-স্পিড ডিজেল পরিবহনের ক্ষমতা রাখে।

ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, ভারতের পররাষ্ট্রনীতির ভিত্তি ‘প্রতিবেশী প্রথম নীতি’ এবং ‘অ্যাক্ট ইস্ট পলিসি’।এই উভয় নীতিই বিমসটেককে সম্পৃক্ত করে।

তিনি আরও বলেন, ভারত বিমসটেক কাঠামোর অধীনে আঞ্চলিক সহযোগিতাকে আরও গভীর করতে দৃঢ় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।সংস্থাটিকে আরও শক্তিশালী, প্রাণবন্ত ও কার্যকর করতে বাংলাদেশসহ বিমসটেক অংশীদারদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবে ভারত।

অনুষ্ঠানে বিমসটেক মহাসচিব তেনজিন লেকফেল, ভুটান ও মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতের পাশাপাশি বাংলাদেশের সরকারি কর্মকর্তারা অংশ নেন।





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top