বিজ্ঞানীদের অবাক করে ছানার জন্ম দিল এক কুমারী কুমির


কোস্টারিকার জলাভূমিতে একটি আমেরিকান কুমির। ছবি: দ্য গার্ডিয়ান কুমিরের ক্ষেত্রে বিজ্ঞানীরা এই প্রথমবারের মতো এমন অত্যাশ্চর্য ঘটনা দেখলেন। কোস্টারিকার একটি চিড়িয়াখানায় কোনো পুরুষের সংস্পর্শ ছাড়াই সম্পূর্ণ কুমারী অবস্থায় ছানার জন্ম দিয়েছে একটি কুমির।

বুধবার রাতে দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে এ খবর জানা গেছে।

বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন, ছানার জন্ম দেওয়া মাদি কুমিরটি টানা ১৬ বছর কোনো পুরুষ কুমিরের সংস্পর্শ ছাড়াই একটি সম্পূর্ণ ভ্রূণ তৈরি করতে সক্ষম হয়। ওই ভ্রূণটির সঙ্গে জিনগতভাবে তার ৯৯.৯ শতাংশ মিল রয়েছে।

বিষয়টিকে ‘উত্তেজনাকর আবিষ্কার’ আখ্যা দিয়ে গবেষকেরা বলছেন, ঘটনাটি এটাই নির্দেশ করছে যে-কুমিরের বিবর্তনীয় পূর্বপুরুষেরা হয়তো স্বপ্রজননে সক্ষম ছিল।

কুমিরের ক্ষেত্রে এবারই প্রথম দেখা গেলেও কুমারী অবস্থায় বাচ্চা জন্ম দেওয়ার ঘটনা এর আগে দু-একটি পাখি, মাছ, টিকটিকি এবং সাপের প্রজাতির মধ্যে দেখা গিয়েছিল। এভাবে জন্ম দেওয়ার প্রক্রিয়াটিকে বলা হয় ফ্যাকাল্টেটিভ পার্থেনোজেনেসিস। এটি এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে একটি ডিম্বাণু শুক্রাণু দ্বারা নিষিক্ত না হয়ে একটি ভ্রূণ হিসেবে বিকশিত হয়।

জানা যায়, কুমারী অবস্থায় ছানার জন্ম দেওয়া আমেরিকান কুমিরটিকে ২০০২ সালে ২ বছর বয়সে বন্দী করে কোস্টারিকায় একটি চিড়িয়াখানার ঘেরে রাখা হয়েছিল। পরে টানা ১৬ বছর ওই ঘেরে একা একাই অবস্থান করছিল কুমিরটি। ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে চিড়িয়াখানার কর্মচারীরা ঘেরের মধ্যে ১৪টি ডিম আবিষ্কার করেন। ডিমগুলো না ফুটলেও একটিতে সম্পূর্ণরূপে গঠিত ভ্রূণ ছিল। পরে ওই ভ্রূণের জেনেটিক বিশ্লেষণ করে দেখা যায়-এর মধ্যে কোনো পুরুষের সংস্পর্শ নেই।

ওই ভ্রূণ থেকেই কুমিরের ছানাটি সম্প্রতি বেরিয়ে এসেছে।





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top