বিএনপি হত্যা, ষড়যন্ত্রের হোতা: কাদের


১৯৭৫ সালে যে হত্যা ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি এ দেশে শুরু হয়েছে, বিএনপি সেই হত্যা-ষড়যন্ত্রের হোতা বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

মঙ্গলবার (৮ আগস্ট) রাজধানীর বনানী কবরস্থানে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের কবরে শ্রদ্ধা জানানো শেষে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে এ অভিযোগ করেন তিনি।

এর আগে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান দলের নেতাকর্মীরা। এ সময় বঙ্গমাতার রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া করা হয়। পরে দলের সহযোগী সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে নিরাপদ এবং অসাম্প্রদায়িক মানবতাবোধকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে বিএনপি নামক অপশক্তিকে প্রতিহত করতে হবে।

তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালে যে হত্যা ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি এ দেশে শুরু হয়েছে, তারই ধারাবাহিকতায় ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড, ৩ নভেম্বর বঙ্গবন্ধুর সহচর জাতীয় চার নেতা হত্যাকাণ্ড, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রনেড হামলা, যার প্রধান টার্গেট ছিলেন বঙ্গবন্ধুকন্যা আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আইভি রহমানসহ ২৩ জনের জীবন চলে গেল। এই সমুদয় হত্যার পেছনে একটা দল বিএনপি। এই দল দলটি বাংলাদেশে হত্যা, ষড়যন্ত্রের হোতা।

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব আমাদের ইতিহাসে এক অসাধারণ ত্যাগী বিজয়লক্ষ্মী নারী, এ কথা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আজ তার ৯৪তম জন্মদিন। জন্মের আনন্দ যখন বেদনার অশ্রুতে, তখন সে এক অনির্বচনীয় অনুভূতি, যার কোনো প্রকাশ নেই।’

তিনি বলেন, শেখ মুজিব থেকে বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধু থেকে জাতির পিতা, এই যে উত্তরণ বঙ্গবন্ধুর জীবনে; স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতার সংগ্রাম—এই সমুদয় সংগ্রামে বেগম মুজিব শুধু বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিণী নন, তিনি ছিলেন এক নিবেদিতপ্রাণ সহযোদ্ধা। বঙ্গবন্ধুর একেবারে কাছের একজন সহকর্মী। সঙ্কটে-সংগ্রামে পেছন থেকে যিনি বঙ্গবন্ধুকে প্রেরণা ও শক্তি দিয়েছেন, এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন।

এ সময় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

শেখ ফজিলাতুন নেছা ১৯৩০ সালের ৮ আগস্ট গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। এই মহীয়সী নারী ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সপরিবারে স্বাধীনতাবিরোধী খুনি চক্রের বুলেটের আঘাতে শহিদ হন।





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top