বিএনপি-আ.লীগকে একই শর্তে অনুমতি



আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি- দুই দলকেই রাজধানীতে একই শর্তে সমাবেশ করতে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি দুই দলকেই রাজধানীতে সমাবেশ করতে একই শর্ত বেঁধে দেয়া হবে। তবে সমাবেশের নামে কেউ বিশৃঙ্খলা করলে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদের মতো ব্যবস্থা নেবে।’

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালন উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এসব কথা জানান।

দল দু’টি কোথায় সমাবেশ করবে সেই অনুমতি এখনো দেয়া হয়নি বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বায়তুল মোকাররমে সমাবেশ করার বিষয়ে আওয়ামী লীগ অনড় অবস্থানে, বিএনপিও নয়া পল্টনে অনড় অবস্থানে- এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা শুনেছি, এটা নিয়ে বসব। তারা যদি করে নিশ্চয়ই আমরা তাদেরও কন্ডিশন দিয়ে দেব। দুই দলকেই কন্ডিশন দিয়ে দেব, তারা কী কী কিভাবে করবেন, কী কী করতে পারবেন না। দুই দলের জন্য একই নির্দেশনা থাকবে।’

তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আমরা কাউকে অনুমতি দেইনি। আমাদের কমিশনার সাহেব এখন বসবেন। পুলিশ কমিশনার এটা নিয়ন্ত্রণ করেন। তিনি বসে সিদ্ধান্ত নেবেন কী করবেন।’

রাজনৈতিক দলগুলোকে আপনারা কেন রাস্তায় সমাবেশ করার অনুমতি দেন। রাজনৈতিক দলগুলো আগে-পরে সমাবেশ করতে পারে, এতে মানুষের দুর্ভোগও কম হয়- এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘এটা তাদের রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত, এখানে আমরা কিছু বলার নেই। এটা রাজনৈতিক নেতাদের জিজ্ঞাসা করুন, আমি তো স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ মুহূর্তে, আমার কাছে আইনশৃঙ্খলা নিয়ে জিজ্ঞাসা করবেন।’

তিনি বলেন, ‘আমরা অনুমতি দেয়ার সময় যাতে জনদুর্ভোগ না হয় সেই কথাটা বলে দেই। তাদের কর্তব্যটা জানিয়ে দেই। কিছু শর্ত আমরা সবসময় দিয়ে দেই, এ জিনিসগুলো আপনারা করতে পারবেন না।’

রাজধানীতে দুই দলের কর্মসূচি নিয়ে সহিংসতার কোনো আশঙ্কা দেখছেন কি না- জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, রাজনীতিবিদ ও রাজনৈতিক দলগুলোর কর্মসূচি পালনে আমাদের সরকারের কোনো বাধা নেই। কিন্তু তারা যেন নিয়মশৃঙ্খলা মেনে চলেন, দেশের আইন মেনে চলেন। জনদুর্ভোগ সৃষ্টি না কলেন আমরা সেই বিষয়ে আহ্বান রাখব। আমি আহ্বান রাখব তারা যেন জনগণের দুর্ভোগ সৃষ্টি না করেন।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘যদি ভাঙচুর করেন, জনগণের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে যান, শান্তিশৃঙ্খলা বিনষ্ট করেন; তখন আমাদের নিরাপত্তা বাহিনীর যে কাজ, তাদের ওপর যে অর্পিত দায়িত্ব সেই দায়িত্ব তারা পালন করবেন। আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী এখন অনেক সুদক্ষ। তাই অনুরোধ জানাব তারা (রাজনৈতিক দল) যেন রাস্তায় চলাচল বন্ধ না করেন, ভাঙচুরে লিপ্ত না হন। আমাদের কোনো জায়গায় কোনো বাধা নেই।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি আজ কর্মসূচি করতে চেয়েছিল। আমরা বলেছি, রাস্তায় কোনো ক্রমেই সমাবেশ করতে দেবো না। তারা সরিয়ে নিয়ে আগামীকাল করবেন। সেখানেও আমরা বলবো, রাস্তা পরিহার করার জন্য। যদি না করেন, সেক্ষেত্রে যাতে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি না করেন, দুর্ভোগ সৃষ্টি করলে আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী তাদের কাজ করবেন। যে দলই করবেন শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখবেন, এটাই আমাদের মূল কথা।’

ঝামেলা না করলে রাস্তায় সমাবেশ করা যাবে কি- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সেটা আপনারা জানেন। ঝামেলা করবেন কি না করবেন, আপনাদের কাছে ইনফরমেশন রয়েছে। আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী সবসময় প্রস্তুত আছে, যদি ঝামেলা করে তাদের অর্পিত দায়িত্ব পালন করবেন।’

বিএনপি নয়াপল্টানে এবং আওয়ামী লীগ বায়তুল মোকাররমের দক্ষিণ গেটে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে। এক্ষেত্রে পুলিশের পক্ষ থেকে নতুন কোনো নির্দেশনা দেয়া হবে কি না- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘আমরা সবসময় পুলিশের পক্ষ থেকে অনুরোধ করছি বড় বড় দলগুলোকে যাতে তারা রাস্তা ও রাজপথ যাতে বর্জন করেন। তারপর যদি করেন, তবে তাদের প্রতি আমাদের অনুরোধ থাকবে, তারা যেন সহিংসতায় না যায়। কারা কোথায় সমাবেশ করছে এখনো আমরা অফিসিয়ালি জানি না। দু’দলকেই মাঠে করতে বলেছি, মাঠে করতে যদি তাদের অসুবিধা থাকে, পরবর্তী সিদ্ধান্ত তারা যেটা করবে আমরা সেটা বিবেচনা করব।’

সান নিউজ/এইচএন



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top