বঙ্গবন্ধুর ‘জুলিও কুরি’ পদক প্রাপ্তির ৫০ বছর পূর্তিতে কুবিতে আলোচনা সভা


প্রকাশিত: ৫:২৮ অপরাহ্ণ, ২৩ মে ২০২৩

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ‘জুলিও কুরি’ শান্তি পদক প্রাপ্তির ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে(কুবিতে) আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৩ মে) বেলা সাড়ে ১১টায় বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে প্রশাসনিক ভবনের ৪১১ নম্বর কক্ষে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ড. মোহা. হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আবদুল মঈন, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লার ৩১১ নং সংরক্ষিত আসনের মহিলা সংসদ সদস্য আরমা দত্ত , এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির ও কোষাধ্যক্ষ ড. মো. আসাদুজ্জামান।

এসময় কোষাধ্যক্ষ ড. আসাদুজ্জামান বলেন, যার জন্ম না হলে বাংলাদেশ স্বাধীন হতো না। বিশ্বে শান্তি স্থাপনের অবদান রাখার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুরকে ‘জুলিও কুরি’ শান্তি পদক প্রদান করা হয়েছে। আমরা বিশ্বের বিভিন্ন নেতাদের পড়াশোনা করি কিন্তু যখন বঙ্গবন্ধু নিয়ে পড়াশোনা করতে বলা হয় তখন একদল লোকের চুলকানি শুরু হয়। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে আমাদের আরও সুদৃঢ় হতে হবে।

উপ-উপাচার্য হুমায়ুন কবির বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার প্রথম আন্তর্জাতিক পুরস্কার ছিল জুলিও কুরি। এর আগে বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকা অবস্থায়ও তিনি বিশ্ববন্ধু উপাধি পান। মুজিব সবসময় নির্যাতিত মানুষের জন্য কাজ করেছেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আবদুল মঈন বলেন, বঙ্গবন্ধুর দর্শন শুধু বাংলাদেশের জন্য না সারাবিশ্বের জন্য ছিল। বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন সারা বিশ্বের মানুষ দুভাগে বিভক্ত। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনাও বাবার মতো দেশের শান্তি স্থাপনের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন, রোহিঙ্গাদের জায়গা দিয়ে বিশ্ব আলোড়ন সৃষ্টি করেন। এছাড়াও, পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি চুক্তির মাধ্যমে দেশের শান্তি স্থাপন করেন।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে আরমা দত্ত বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন নির্যাতিত, শোষিতের পক্ষে। সারাজীবন তিনি সাধারণ মানুষের পক্ষে কাজ করে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর শান্তির বাণী ছড়িয়ে পড়ুক দেশ ও বিশ্ববাসীর কাছে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন অনুষদের ডিন, আবাসিক হলের প্রাধ্যক্ষ, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দসহ শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

শাকিল/সাএ





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top