পাবলিক টয়লেট ব্যবহারে সতর্কতা


লাইফস্টাইল ডেস্ক : ঘরের বাইরে বের হলে কখনো কখনো বাধ্য হয়ে আমরা পাবলিক টয়লেট বা গণশৌচাগার ব্যবহার করি। কিন্তু পাবলিক টয়লেটের পরিবেশটাই এমন যে, এখানে অনেক জীবাণু বা ব্যাকটেরিয়া ছড়িয়ে থাকে এবং তা থেকে সংক্রমণের আশঙ্কা থাকে।


আরও পড়ুন : পাকা ও মিষ্টি কাঁঠাল বোঝার কৌশল


পাবলিক টয়লেটে ব্যবহারে কিছু সতর্কতা মেনে চলা প্রয়োজন।


১) খালি হাতে পানির কল স্পর্শ করবেন না:


টয়লেট শেষে আপনি নোংরা ও জীবাণুযুক্ত হাত দিয়ে পানির কল ছাড়েন এবং পানি ব্যবহারের পর পরিষ্কার হাত দিয়ে তা বন্ধ করেন- এভাবে আপনার হাতের জীবাণু পুনরায় আপনার হাতে চলে আসতে পারে।


এছাড়া পাবলিক টয়লেট অনেকে ব্যবহার করে বলে পানির কলে লেগে থাকা তাদের জীবাণু আপনার হাতে চলে আসতে পারে। হাত ধোয়ার পর টিস্যু দিয়ে পানির কল বন্ধ করুন।


২) সাথে রাখা জিনিসপত্র মেঝেতে রাখবেন না:


আপনার সঙ্গে থাকা ব্যাগ বা অন্যান্য জিনিস টয়লেটের ভেতর না নিয়ে যাওয়াই ভালো। এগুলো মাটিতে রাখলে বা টয়লেটের ভেতরে রাখলে জীবাণু লেগে যেতে পারে।


আপনার সঙ্গীকে এগুলো রাখার অনুরোধ করুন বা যদি ভেতরে নিয়ে যেতে হয় তাহলে উঁচু কোনো স্থানে রাখুন। পরবর্তীতে সেগুলোতে স্যানিটাইজার স্প্রে করে নিন।


৩) টিস্যু দিয়ে ধরুন ফ্লাশ বাটন:


ফ্লাশ বাটনও অনেক ধরনের জীবাণু বহন করে। কারণ এটিও অনেক মানুষ স্পর্শ করে। তাই ফ্লাশ বাটন চাপার সময় টিস্যু ব্যবহার করুন।


আরও পড়ুন : মশলা চায়ে জটিল রোগ মুক্তি


৪) ফ্লাশ করুন ধীরে:


ফ্লাশ করার সময় ধীরে করুন। কেননা জোরে করলে পানি ছিটে জীবাণু ছড়ায় এবং অবশ্যই ফ্লাশ করার আগে কমোডের ঢাকনা বন্ধ করে নিন।


৫) টয়লেটের দেয়াল স্পর্শ করবেন না:


টয়লেট ফ্লাশ করার ফলে বায়ুবাহিত হওয়া পার্টিকেল বাথরুমের দেয়ালের সর্বত্র লেগে থাকে এবং এমনকি অধিকাংশ পাবলিক টয়লেট ভালোভাবে পরিষ্কার করা হয় না। তাই বাথরুমের দেয়াল স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন।


৬) এড়িয়ে চলুন হ্যান্ড ড্রায়ার:


পাবলিক টয়লেটের হ্যান্ড ড্রায়ার শুধুমাত্র স্পর্শ নয়, ব্যবহার করাও উচিত নয়। এক গবেষণায় দেখা গেছে, হ্যান্ড ড্রায়ার থেকে যে বাতাস বের হয় তা জীবাণু ছড়াতে সাহায্য করে।


তাই হ্যান্ড ড্রায়ারে হাত শুকানোর পর জীবাণু থেকে যেতে পারে আপনার হাতে। হ্যান্ড ড্রায়ারের পরিবর্তে টিস্যু ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।


আরও পড়ুন : ভালো ঘুমের জন্য যা করবেন


৭) টিস্যু দিয়ে মুছে নিন কমোড:


কমোডে বসতে হলে আগে টিস্যু দিয়ে বসার জায়গাটি মুছে নিন। এটি জীবাণুর সংক্রমণ থেকে কিছুটা সুরক্ষা দেবে।


৮) খালি হাতে দরজার হাতল বা ছিটকিনি ধরবেন না:


দরজার হাতল বা ছিটকিনি স্পর্শ করবেন না। অনেক লোক টয়লেটের হাতল স্পর্শ করার ফলে বিভিন্ন ধরনের জীবাণু এর মধ্যে থাকে। তাই এটা ধরা থেকে বিরত থাকুন অথবা টিস্যু দিয়ে হাতল স্পর্শ করুন। তথ্যসূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট, বোল্ড স্কাই।


সান নিউজ/এইচএন



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top