নমুনা ভাইভা: তুমি তো কিছুই পারো না


প্রতীকী ছবি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে স্নাতক করেছি। ৪০তম বিসিএস পরীক্ষায় আমি দ্বিতীয়বারের মতো অংশ নিয়েছি। বিসিএসে ক্যাডার চয়েজ যথাক্রমে পুলিশ, প্রশাসন, কাস্টমস, ট্যাক্স…। ৪০তম বিসিএসের ভাইভাতে আনুমানিক প্রায় ২০ মিনিটের মতো ছিলাম। সেটির আলোকে কিছু কথা এখানে বলছি। 

আমি: May I come in sir? ভেতরে প্রবেশ করে সবার উদ্দেশে সালাম দিলাম। (চেয়ারম্যান স্যার আমাকে বসতে বলেন)

চেয়ারম্যান: বসার সময়ে স্যার জিজ্ঞেস করেন, তোমার নাম কী?
আমি: জাবীর হুসনাইন সানীব। 
চেয়ারম্যান: অর্থ কী নামের?
চেয়ারম্যান: হুসনাইন অর্থ সুন্দরতম আর সানীব অর্থ প্রশংসিত। 

চেয়ারম্যান: কে রেখেছে নামটি?
আমি: স্যার, আমার আম্মু। উনি সব সময় ব্যতিক্রম জিনিস পছন্দ করেন।

চেয়ারম্যান: তোমার জেলা তো কিশোরগঞ্জ?
আমি: জি স্যার। তবে ‘I was born & brought up in Dhaka.’

চেয়ারম্যান: ধমক দিয়ে মাস্ক ঠিক করতে বলে বললেন, তার মানে কি তুমি নিজ জেলাকে ডিনাই করছ?
আমি: না স্যার, আমি এমনি বিষয়টা জানালাম।
এক্সটার্নাল-২: স্যার হয়তো ভ্যারিফিকেশনের জন্য এমন বলেছেন।

চেয়ারম্যান: না না, ভ্যারিফিকেশন সেটা তো অনেক পরের বিষয়।
আমি: স্যার, অনুমতি দিলে একটা কথা বলতে চাই। (মাথা নাড়িয়ে অনুমতি দিলেন) স্যার, আমি নিজ জেলাকে মোটেও অস্বীকার করছি না। তবে যেহেতু সামনের ১০-১৫ মিনিট আমার জীবনের টার্নিং পয়েন্ট, যার ওপর ভিত্তি করে আমার পরবর্তী জীবন নির্ধারিত হবে, তাই ঢাকায় বড় হওয়ার বিষয়টি অবচেতন মনেই বলে ফেলেছি। It won’t happen again sir.
এক্সটার্নাল-১: ওকে, বুঝতে পেরেছি।
এক্সটার্নাল-১: তোমার সাবজেক্ট কী?
আমি: বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা করেছি।
এক্সটার্নাল-১: তোমার বড় ভাই-বোনেরা কেমন বা কী করছেন?
আমি: আমি একটু কনফিউজড হয়ে বলি, স্যার, আমার বড় ভাই আর্কিটেক্ট আর ছোট ভাই সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশোনা করছে। আমার কোনো বোন নেই।

চেয়ারম্যান: বড় ভাই-বোন বলতে তোমার সাবজেক্টের সিনিয়ররা।
আমি: ওহ, সরি স্যার। সম্প্রতি ডেঙ্গু কমাতে পুরুষ এডিস মশাকে বন্ধ্যাত্বকরণের পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছেন ড. কাজলা শেহেলি, ড. মাহফুজা মোমেন ও ড. নাহিদা সুলতানা। পাট ও ইলিশের জিনোম সিকোয়েন্স আবিষ্কারকের নাম বলার পর স্যার থামিয়ে দিয়ে পরবর্তী প্রশ্ন করেন।

চেয়ারম্যান: তুমি কী জব করো?
আমি: স্যার, আমি জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দাতে (এনএসআই) অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করছি।
এক্সটার্নাল-২: তোমার পোস্টিং কোথায়?
আমি: স্যার, আমি বর্ডার উইংয়ে বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়িতে ইউনিট ইনচার্জ হিসেবে কর্মরত।
এক্সটার্নাল ২: হাসতে হাসতে…এনএসআইয়ের গোপন কিছু বলো তো।
আমি: Sorry sir. I won’t be able to disclose anything.
চেয়ারম্যান: ওকে। (কিছু না বলার বিষয়টি অ্যাপ্রিশিয়েট করলেন বলে মনে হলো)
এক্সটার্নাল ১: এমনি তো জব ক্রাইসিস তারপর আবার ভাইভা দিতে আসছ কেন?
আমি: স্যার, আল্লাহর রহমতে আমি একটা ভালো জব করছি। তারপরও কর্মজীবনে প্রায়ই এমন অনেক ঘটনা দেখি, তা ছাড়া চলার পথে রাস্তাঘাটে অনেক কিছু প্রত্যক্ষ করি, সে সব বিষয়ে চাইলেও এখন আমার পক্ষে করার কিছু নেই। বিষয়টি ভীষণ ফ্রাস্টেটিং লাগে আমার কাছে। তাই আমি নিজ লক্ষ্য, মানসিক সান্ত্বনা ও আত্মতুষ্টির জন্য ভাইভা দিতে এসেছি।
এক্সটার্নাল-২: তোমার ফাস্ট চয়েজ কী?
আমি: স্যার, পুলিশ।

চেয়ারম্যান: সিআইডি ও পিবিআই সম্পর্কে বলো?
আমি: স্যার, সিআইডি হচ্ছে ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট, যা বাংলাদেশ পুলিশের একটি বিশেষ শাখা। যেসব অপরাধের বিশেষ তদন্ত প্রয়োজন বা আদালতের নির্দেশনায় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মামলার তদন্ত করা এই বিভাগের প্রধান কাজ। অন্যদিকে পিবিআই বা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন ২০১২ সালে গঠিত হয়। মূলত আমেরিকার ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (এফবিআই) আদলেই এটি তৈরি করা হয়েছে। এতে ডাকাতি, খুন, দস্যুতা, নারী ও শিশু নির্যাতন-সংক্রান্ত চাঞ্চল্যকর মামলার তদন্ত করা হয়ে থাকে।
এক্সটার্নাল-২: বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে টাকা চুরির বিষয়ে কী জান?
আমি: সকালে পিএসসিতে ঢোকার আগে পেপারে পড়েছিলাম। তাই বলতে পারলাম।
এক্সটারনাল-২: বাজেটের আকার কত? জিডিপির আকার কত? কোন ধরনের বাজেট (deficit)? ট্যাক্স-জিডিপি রেশিও কত? এফডিআই কত?
আমি: স্যার, বাজেটের আকার ৬,০৩,৬৮১ কোটি টাকা, যা জিডিপির ১৮%; জিডিপির পরিমাণ ৩৯,৭৬,৪৬২ কোটি টাকা; ঘাটতি বাজেট; এফডিআই এসেছে প্রায় ২৯০ কোটি ডলার; ৭.৮%।

চেয়ারম্যান: পুলিশের বাজেট কত?
আমি: সরি স্যার, জানি না।

চেয়ারম্যান: ডিএমপির বাজেট পুলিশের বাজেটের কত পারসেন্ট?
আমি: সরি স্যার।

চেয়ারম্যান: ধমকের সুরে বললেন, পুলিশ ফার্স্ট চয়েস অথচ এটাই জানো না। তুমি তো কিছুই পারো না। আচ্ছা, তুমি এখন যেতে পারো।
আমি: আমি সালাম দিয়ে বের হয়ে এলাম।

জাবীর হুসনাইন সানীব,সহকারী পুলিশ সুপার, ৪০তম বিসিএস। 

অনুলিখন: আনিসুল ইসলাম নাঈম





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top