গরমে পেটে সমস্যায় করনীয়


লাইফস্টাইল ডেস্ক : তীব্র গরমে কখনো কখনো আমাদের শরীরে হজম প্রক্রিয়ায় ব্যাঘাত সৃষ্টি হতে পারে। এ সময় খাবার ঠিকভাবে হজম করা কঠিন হয়ে পড়ে। গরম বেশি পড়লে হজম প্রক্রিয়া ঠিকভাবে কাজ করতে পারে না। সেই সাথে থাকতে পারে ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাসের প্রভাব। এসব কারণে অনেক ক্ষেত্রে ডায়রিয়ার মতো সমস্যা দেখা দেয়।


আরও পড়ুন : হলুদের উপকারিতা


গরমের সময় পেটের নানা সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে হলে বুঝেশুনে খাবার খেতে হবে এবং চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কোনো ধরনের ওষুধ খাওয়া যাবে না। পাশাপাশি খাবারের তালিকায় আনতে হবে কিছু পরিবর্তন। গরমে পেটে সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে বেছে নিতে হবে বিশেষ কিছু খাবার।


জেনে নিন কোন খাবারগুলো খাবেন-


(১) ওরস্যালাইন : গরমের সময় ঘামের কারণে শরীর থেকে অনেকটা পানি বের হয়ে যায়। সেই সাথে পেট খারাপ বা ডায়রিয়া হলে ক্ষতি আরও বেশি হয়। তখন শরীরে পানির ঘাটতি হওয়া খুবই স্বাভাবিক। এ অবস্থায় শরীরে সোডিয়াম ও পটাশিয়ামের ভারসাম্যও নষ্ট হতে পারে। তাই এ সমস্যা থেকে বাঁচতে ওরস্যালাইন খান। একবারে পুরোটা না খেয়ে একটু একটু করে খান।


প্যাকেটের গায়ে লেখা নির্দেশনা অনুযায়ী স্যালাইন তৈরি করবেন। এটি শরীরে পানির ঘাটতি মেটাবে সহজেই।


আরও পড়ুন : কচু বাটা তৈরির রেসিপি


(২) ডাবের পানি : গরমে তৃষ্ণা মেটাতে ডাবের পানি দুর্দান্ত কাজ করে। এতে থাকে পটাশিয়াম, সোডিয়াম, ভিটামিন সি, ভিটামিন বি১, কার্ব ইত্যাদি। পেট খারাপ হলে দারুণ কার্যকরী হতে পারে ডাবের পানি। এই পানি শরীরে পানির ঘাটতি মেটাতে কাজ করে। এটি শরীরে সোডিয়াম ও পটাশিয়ামের ভারসাম্যও রক্ষা করে। তাই পেটে সমস্যা দেখা দিলে দিনে ২ থেকে ১ টি ডাবের পানি পান করুন। এতে দ্রুত ফল পাবেন।


(৩) দই : দইয়ে থাকে অন্ত্রের জন্য কিছু উপকারী ব্যাকটেরিয়া। এসব উপকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা কমে এলেই ডায়রিয়ার মতো সমস্যা দেখা দেয়। এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে দই। দইয়ে থাকে ন্যাচারল প্রোবায়োটিক। ফলে দই খেলে অন্ত্রে উপকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পায়। এই খাবার পাতলা পায়খানা এবং বমির সমস্যাও কমিয়ে আনে। তাই এ সময় পেটের সমস্যা হলে দই কিংবা ঘোল খেতে পারেন।


আরও পড়ুন : ডিম যেভাবে খাওয়া স্বাস্থ্যকর


(৪) সহজে হজম হয় এমন খাবার : পেট খারাপ হলে অতিরিক্ত তেল-মসলা দেওয়া খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। এর বদলে খেতে হবে এমন সব খাবার যেগুলো সহজে হজম হয়। এতে রোগীর পক্ষে দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠা সম্ভব হবে। ভাত, মুড়ি, আলু সেদ্ধ, ডাল এসব খেতে পারেন। মাছ বা ডিম খেতে পারেন প্রোটিনের ঘাটতি মেটাতে। এতে সমস্যা দ্রুতই কমে আসবে।


সান নিউজ/এনজে



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top