আ.লীগ শান্তি সমাবেশের নামে শান্তি কমিটির ভূমিকা পালন করছেন: হাবিব-উন-নবী খান


গাইবান্ধা জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে বক্তব্য দেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল। ছবি: আজকের পত্রিকা  আওয়ামী লীগ শান্তি সমাবেশের নামে শান্তি কমিটির ভূমিকা পালন করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল। আজ শনিবার গাইবান্ধা জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে তিনি এমন মন্তব্য করেন। সমাবেশের আয়োজন করে গাইবান্ধা জেলা বিএনপি। 

এ সময় হাবিব-উন-নবী খান সোহেল বলেন, ‘সারা দেশে গুন্ডাতন্ত্র কায়েম হয়েছে। পোশাকধারী আর অপোশাকধারী গুন্ডাদের দিয়ে বর্তমান সরকার দেশ চালাচ্ছেন। কোনো বাহিনীই কখনো দীর্ঘস্থায়ী অবৈধ কোনো কিছু রক্ষা করতে পারে না। বিএনপি জনগণের দল। জনগণের সমাবেশকে প্রতিহত জন্য আওয়ামী লীগ শান্তি সমাবেশ করছে। যে সমাবেশ রাজাকার বাহিনীর গঠিত শান্তি কমিটির ভূমিকা পালন করছে। অন্যের জন্য গর্ত খুঁড়লে, সে গর্তে নিজেকে পড়তে হয়। এটা মনে রাখতে হবে।’ 

সমাবেশে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘এই সরকার সাধারণ জনগণের ভোট ছাড়া সরকার। তাই জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধি করে জনগণকে কষ্ট দিচ্ছে। আওয়ামী লীগ জানেন এই জনগণ তাদের ভোট দেয় না এবং ভবিষ্যতে দেবে না। সে জন্য দ্রব্যের দাম বৃদ্ধি করে জনগণের ওপর প্রতিশোধ নিচ্ছে।’ 

সরকারকে হুঁশিয়ারি করে তিনি বলেন, ‘আজ ক্ষমতায় আছেন, কাল থাকবেন না। রাজনীতির পরিবেশ নষ্ট করবেন না। দেশের মানুষ অনেক আগেই এই সরকারকে প্রত্যাখ্যান করছেন। তবে গত তিন-চার দিন আগে বিশ্বের জনগণও তাদের প্রত্যাখ্যান করছেন। আওয়ামী লীগের মধ্যে নরম সুরের বাতাস শুরু হয়ে গেছে। সময় আর বেশি নাই; পালানোর পথ খুঁজে পাবে না। জনগণের ওপর যে অত্যাচার করছেন, দেশের মানুষ আওয়ামী লীগকে পালাতেও দিবে না। অবৈধভাবে ক্ষমতায় থেকে কোটি কোটি টাকা বিদেশে পাচার করছেন, এর হিসাব জনগণ আওয়ামী লীগের কাছ থেকে পইপই করে হিসাব নিবে।’ 

ডিজিটাল নিরাপত্তার আইনের কঠোর সমালোচনা করে সোহেল বলেন, ‘এই আইন নিরীহ জনগণের ওপর প্রয়োগের আইন। এই আইন বাতিল না হলে পরবর্তীদের তাদের ঘাড়েই ওপরই গিয়ে পড়বে।’ 

নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘ডাকছে ঘরে আর বসে থাকার সময় নেই। রাজপথে ঘুমানোর প্রস্তুত নিন। সরকারের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। আওয়ামী লীগ এখন আবোলতাবোল বকছে।’ গাইবান্ধার এই সমাবেশের আগে নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার ও হয়রানির তীব্র প্রতিবাদ জানান। 

সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্যেই বিএনপির রংপুর বিভাগীয় সহসাংগঠনিক আব্দুল খালেন বলেন, ‘এই সরকারের পায়ে নিচে আর মাটি নেই। তারা আর ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারবে না। তাদের ভেতরে ভয়, মুখে চাপার ওপর ভর করে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে আছে।’ 

তিনি বিএনপির তৃণমূলের নেতা-কর্মীকে আগামী দিনের কর্মসূচিতে রাজপথে থাকার আহ্বান জানান। সমাবেশে জেলা বিএনপির সভাপতি ডা. মইনুল হাসান সাদিকের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্য বক্তব্য দেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির গ্রামবিষয়ক সম্পাদক আনিছুজ্জামান খান বাবু, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলামসহ স্থানীয় নেতারা। সমাবেশটি সঞ্চালনা করেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুন্নবী টিটুল। 

এর আগে সমাবেশে সকাল ১০ থেকে বিভিন্ন থানা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন থেকে বিএনপিসহ অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে জড়ো হন। পরে দুপুর ১২ থেকে আড়াইটা পর্যন্ত এই সমাবেশ চলে।





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top